বাংলার উৎসব রচনা (Banglar Utsav Rachana Essay)

বাংলার উৎসব রচনা (Banglar Utsav Rachana Essay)

বাংলার উৎসব রচনা (Banglar Utsav Rachana)

ভূমিকাঃ-

ভারতবর্ষের একটি অন্যতম অঙ্গরাজ্য হলো বাংলা অর্থাৎ পশ্চিম বাংলা। এই পশ্চিমবাংলায় ভিন্ন ভিন্ন ঋতুর বৈচিত্র চোখে পড়ার মতো ঋতু বৈচিত্র্যের উপর ভিত্তি করে এখানে বিভিন্ন উৎসব অর্থাৎ বাঙালির বারো মাসে তেরো পার্বণ অনুষ্ঠিত হয়।

উৎসবের শ্রেণিবিভাগঃ-

বাংলার বৈচিত্রপূর্ণ উৎসব গুলিকে কয়েকটি শ্রেণীতে বিভক্ত করা যায় যেমন

বৈদিক উৎসবঃ-

নামকরণ, অন্নপ্রাশন,উপনয়ন,বিবাহ, ঋষিশ্রাদ্ধ, পার্বণ শ্রাদ্ধ ইত্যাদি।

পৌরাণিক উৎসবঃ-

নাম মহোৎসব,সত্যনারায়ণ বা সত্যপীর উৎসব,সরস্বতী,চণ্ডী,মনসা,ধর্মদেবতা বিষয়ক উৎসব, কৃষ্ণজন্মোৎসব, বা জন্মাষ্টমী, রথযাত্রা,দোলযাত্রা ও রাসযাত্রা, ঝুলনযাত্রা,রাধাষ্টমী, কোজাগরী লক্ষ্মী পূজা, শিবরাত্রি, দুর্গোৎসব,জগদ্ধাত্রীপূজা,কালীপূজা, দীপাবলি, কার্তিকপূজা, বড়দিন, গুড ফ্রাইডে, বুদ্ধ পূর্ণিমা, মহরম,ঈদ উল ফিতর,মহাবীর জয়ন্তী ইত্যাদি।

লোক উৎসবঃ-

চড়ক বা গাজন,বনদুর্গা,বনবিধি,দক্ষিণ রায়, পীর ও গাজির উৎসব, লালনোৎসব, ঈদ পরব, ইতু, টুসু, ভাদু পরব,অম্বুবাচি,বোলান,বিশ্বকর্মা,গন্ধেশ্বরী,গোরক্ষনাথ, পৌষপার্বণ,ত্রিনাথ পূজা,আউনি-বাউনি ইত্যাদি।

সামাজিক উৎসবঃ-

ভাইফোঁটা, বিবাহ, জামাইষষ্ঠী,বিজয়া, সইপাতানো নববর্ষ,হালখাতা ইত্যাদি।

জাতীয় উৎসবঃ-

স্বাধীনতা দিবস(১৫ ই আগস্ট),প্রজাতন্ত্র দিবস(২৬ শে জানুয়ারী) রবীন্দ্র জয়ন্তী,গান্ধী জয়ন্তী, রামকৃষ্ণ ও বিবেকানন্দ জয়ন্তী,নেতাজি জয়ন্তী ইত্যাদি এছাড়াও প্রাচীনকালে পুষ্করিণী প্রতিষ্ঠা, ভূমিদান, বৃক্ষরোপণ উৎসবও পালিত হতো। অবশ্য এখন সামাজিক পরিকাঠামো পরিবর্তিত তাই নানা উৎসব ও প্রায় অবলুপ্ত। তবুও তার পরিবর্তে নানা নব নব উৎসবের জন্ম হয়েছে যেমন লোক উৎসব, বনমহোৎসব, যাত্রা উৎসব,নাট্য উৎসব,শিল্প উৎসব ইত্যাদি।

ঋতু উৎসবঃ-

বঙ্গ প্রকৃতিতে ছয়টি ঋতুর আবির্ভাব বাঙালি জীবনে নিয়ে আসে বৈচিত্র‍্য। বাংলার মানুষ এই বৈচিত্র‍্যে আরো বেশি করে অনুভব করে বিভিন্ন ঋতুতে অনুষ্ঠিত বর্ণময় উৎসবগুলোর মাধ্যমে। বাংলার ঋতু উৎসবগুলির মধ্যে প্রধান হল নবান্ন,পৌষ পার্বণ, মাঘোৎসব, দোলযাত্রা,নববর্ষোৎসব প্রভৃতি। রবীন্দ্রনাথের শান্তিনিকেতনে বৃক্ষরোপণ, বর্ষামঙ্গল, বসন্তোৎসব উদযাপিত হয়। রবীন্দ্রনাথের ধারা অনুসরণ করে এই সমস্ত উৎসব আজও শান্তিনিকেতনের বাইরে বিভিন্ন জায়গায় অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

উপসংহারঃ-

উৎসবের মূল চেতনা হল মানুষের কল্যাণসাধন। দৈনন্দিন জীবনের তুচ্ছতা,গতানুগতিকতা থেকে মুক্তি পেতে মানুষের মন সততই আকুল।উৎসব মানুষের জীবনের এই চাহিদাগুলোকে পূরণ করে। উৎসব মিলন, মৈত্রী ও শান্তির বাণী বহন করে।নিজস্বতা,বৈচিত্র‍্য ও আড়ম্বরে সমৃদ্ধ বাংলার উৎসব বাঙালির জীবনযাত্রাকে করেছে আনন্দময় ও পরিপূর্ণ।

image_pdfDownload PDFimage_printPrint This Page

Leave a Comment